Sale!

Dry Fruits from Malaysia

৳ 850.00 ৳ 800.00

Compare

Description

Dry Fruits from Malaysia (1/2 Kg)
➖➖➖
রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থাপনা (Immune System) ঠিক রাখতে কেডি মার্কেটিং দিচ্ছে বিশেষ মূল্যছাড় 😍 (৫/৬ ধরনের শুকনা ফল দিয়ে আমাদের প্যাকেজ)
* এ সুযোগ ষ্টক থাকা

কিউই 🥝🥝
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগ (ইউএসডিএ) এর মতে, ১০০ গ্রাম কিউই ফ্রুটে রয়েছে ১৪.৬৬ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ১.১৪ গ্রাম প্রোটিন, ০.৫ গ্রাম ফ্যাট, ৩ গ্রাম ফাইবার এবং ৬১ ক্যালোরি শক্তি। কিউই সত্যিই একটি চমকপ্রদ ফল যা প্রায়শই ফলের বাটি, সালাদ কিংবা স্মুদি তৈরীতে ব্যবহৃত হয়।
কিউই ফলের পুষ্টি বিভাজন অনুসারে, প্রতি ১০০ গ্রামে ১৫৪ শতাংশ ভিটামিন সি রয়েছে, যা লেবু এবং কমলার চেয়ে দ্বিগুণ! ভিটামিন সি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসাবে কাজ করে ও ফ্রি র্যাডিকেলগুলি দূর করে যা প্রদাহ বা ক্যান্সারের কারণ হতে পারে।
কিউই ফল ভিটামিন এ, বি ৬, বি ১২, ই, এবং পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন ও ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ যা শরীরের রক্ত সঞ্চালন, স্ট্রেস কমানো, দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি, মজবুত হাড় এবং দাঁত গঠন করে। কিউইফ্রুটের প্রতি ১০০ গ্রামে ৩১২ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম থাকে যা ব্লাডপ্রেশার নিয়ন্ত্রণ করে এবং ম্যাগনেসিয়াম স্নায়ু ও পেশী সঞ্চালনে সহয়তা করে।

এপ্রিকট🥑🥑
* এপ্রিকটে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-বি২, ভিটামিন-বি৩, ভিটামিন-এ এবং ভিটামিন-সি রয়েছে।
* এপ্রিকটে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, প্রোটিন ও উপকারী ফ্যাট।
* রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়িয়ে তুলে রক্তশূন্যতা প্রতিরোধে সাহায্য করে এপ্রিকট। যাদের মাসিকের সময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। তাদের জন্য এপ্রিকট খুবই উপকারী।
* এপ্রিকটের পেকটিন ও সেলুলোজ পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। নিয়মিত এপ্রিকট খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।
* জ্বরের সময় এপ্রিকট পিষে মধুর সাথে মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়।

শুকনা আম 🥭🥭
শুকনা আমের উপাদানঃ শুকনা আমে রয়েছে ম্যাঙ্গানিজ, কার্বোহাইড্রেট ৭৮.৫৮ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি, কপার, ভিটামিন ই, ভিটামিন বি৬, ভিটামিন বি৯, ভিটামিন বি৩, ভিটামিন-কে, সোডিয়াম
শুকনা আমের উপকারিতাঃ শুকনা আমের রয়েছে ক্যান্সার প্রতিরোধক ক্ষমতা, সুন্দর ত্বকের জন্য, ওজন কমাতে, ইমিউন সিস্টেম উন্নত করনে, অ্যালকালাইন ব্যালেন্স ইত্যাদিতে বেশ উপকারী।

ষ্টবেরি 🍓🍓
এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ম্যাঙ্গানিজ ও পটাশিয়াম। আর সোডিয়াম প্রায় নেই বলে উচ্চ রক্তচাপ ও হৃদ্রোগীদের জন্য এটি খাওয়া ভালো। স্ট্রবেরিতে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট অনেক, বিশেষ করে পলিফেনলজাতীয় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। আটটি স্ট্রবেরিতে একটি কমলার সমান ভিটামিন সি পাওয়া যায়। স্ট্রবেরি মানুষের শরীরের ক্ষতিকর চর্বি এলডিএল কমায়। রক্তচাপ রোধে সহায়তা করে। আর হৃদ্যন্ত্রের জন্যও এই ফল ভালো।

রাসবেরি প্লাম 🍒🍒

রাসবেরি প্লাম এন্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর একটি ফল। ভিটামিন সি ও ই, সেলেনিয়াম, বিটা ক্যারোটিন, লুটিন, জিয়াজেনথিন ইত্যাদির কারনে এটি শারিরীক সুস্থতা ও দৈহিক সৌন্দর্য রক্ষায় দারুন কার্যকর। আমরা জানি এন্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের ফ্রি-রেডিক্যাল দূর করতে সহায়ক। এটি ব্রেইন পাওয়ার বাড়ায়, ক্যান্সার প্রতিরোধক এবং ব্লাড প্রেসার স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে।
জিয়াজেনথিন উপাদানের জন্য এটি চোখের বিশেষ উপকার করে থাকে। এছাড়াও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ ও হজমি শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

প্লাম সাকুরা Plum Sakura

রসে ভরপুর এই ফলটি খেতে যেমন সুস্বাদু, তেমনি পুষ্টিগুণে ঠাসা। কী নেই এতে! প্রোটিন, মিনারেল এবং আয়রণ সমৃদ্ধ প্লাম নানা ভাবে শরীর, ত্বক এবং চুলের উন্নতি ঘটায়। এখানেই শেষ নয়, হিন্দি বলয়ে আলু বোখরা নামে পরিচিত এই ফলটিতে রয়েছে ভিটামিন- এ, ভিটামিন- সি এবং ডায়াটারি ফাইবার, যা শরীরে প্রয়োজনীয় অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের সরবরাহ বজায় রাখে। শরীর ভাল রাখতে দরকার পরে কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন এবং পেন্টোথেনিক অ্যাসিডের। আর এই সবকটি উপাদানই মজুত রয়েছে এই ফলটিতে। তাহলে বুঝতেই পারছেন তো আকারে ছোট হলেও কার্য়কারিতার দিক থেকে কিন্তু একবারে প্রথম সারিতে রাখতেই হবে আলু বোখরা বা প্লামকে।
১. ত্বকের বয়স কমায়
২. ব্রণর দাগ কমায়
৩. সূর্যের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে ত্বককে বাঁচায়
৪. ত্বককে উজ্জ্বল করে
৫. হাইপারপিগমেন্টটেশন সারায়

আনারস 🍍🍍

আনারসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ এবং সি, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম ও ফসফরাস। এই সকল উপাদান আমাদের দেহের পুষ্টির অভাব পূরণে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। প্রতিদিন অল্প পরিমাণে আনারস খেলে দেহে এইসকল পুষ্টি উপাদানের অভাব থাকবে না।
আনারস আমাদের হজমশক্তি বৃদ্ধি করতে বেশ কার্যকরী। আনারসে রয়েছে ব্রোমেলিন যা আমাদের হজমশক্তিকে উন্নত করতে সাহায্য করে।
আনারসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ম্যাংগানিজ। ক্যালসিয়াম হাড়ের গঠনে বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং ম্যাংগানিজ হাড়কে করে তোলে মজবুত।
আনারস আমাদের ওজন কমানোয় বেশ সাহায্য করে। কারণ আনারসে প্রচুর ফাইবার রয়েছে এবং অনেক কম ফ্যাট। সকালের যে সময়ে ফলমূল খাওয়া হয় সে সময় আনারস এবং সালাদে আনারস ব্যবহার অথবা আনারসের জুস অনেক বেশি স্বাস্থ্যকর। তাই ওজন কমাতে চাইলে আনারস খান।
বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যায় যে আনারস ম্যাক্যুলার ডিগ্রেডেশন হওয়া থেকে আমাদের রক্ষা করে। এই রোগটি আমাদের চোখের রেটিনা নষ্ট করে দেয় এবং আমরা ধীরে ধীরে অন্ধ হয়ে যাই। আনারসে রয়েছে বেটা ক্যারোটিন। প্রতিদিন আনারস খেলে এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা ৩০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়। এতে সুস্থ থাকে আমাদের চোখ।

Additional information

Weight 0.5 kg

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “Dry Fruits from Malaysia”

Your email address will not be published. Required fields are marked *